এইচএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি ২০১৭ বাংলা ১ম পত্র

সৃজনশীল প্রশ্নোত্তর
প্রিয় পরীক্ষার্থী, বাংলা ১ম পত্র বিষয় থেকে একটি নমুনা সৃজনশীল প্রশ্নোত্তর দেওয়া হলো।

কন্যার পিতা রামসুন্দর আমাদের রায়বাহাদুরের হাতে-পায়ে ধরিয়া বলিলেন, ‘শুভকার্য সম্পন্ন হইয়া যাক, আমি নিশ্চয়ই টাকাটা শোধ করিয়া দিব।’ রায়বাহাদুর বলিলেন, ‘টাকা হাতে না পাইলে বর সভাস্থ করা যাইবে না।’ এই দুর্ঘটনায় অন্তঃপুরে একটা কান্না পড়িয়া গেল।…ইতিমধ্যে একটা সুবিধা হইল। বর সহসা তাহার পিতৃদেবের অবাধ্য হইয়া উঠিল। সে বাপকে বলিয়া বসিল, ‘কেনাবেচা-দরদামের কথা আমি বুঝি না, বিবাহ করিতে আসিয়াছি, বিবাহ করিয়া যাইব।’
[তথ্যসূত্র: ‘দেনা-পাওনা’ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর]
ক. কার বিরুদ্ধে চলা অনুপমের জন্য অসম্ভব ছিল?
খ. অনুপমের মামা কেন বিয়েবাড়িতে স্যাকরা নিয়ে গিয়েছিলেন?
গ. উদ্দীপকের বরের সঙ্গে অনুপমের কোন বিষয়ে বৈসাদৃশ্য রয়েছে? আলোচনা করো।
ঘ. ‘উদ্দীপকের ঘটনাটিতে ‘অপরিচিতা’ গল্পের সামাজিক অসংগতি বা সমস্যা প্রতিফলিত হয়েছে’—উক্তিটি বিশ্লেষণ করো।

উত্তর-ক
অনুপমের মামার বিরুদ্ধে চলা অনুপমের জন্য অসম্ভব ছিল।

উত্তর-খ
অনুপমের মামা বিয়েতে যে যৌতুক পাওয়া যাবে তা খাঁটি কি না, পরীক্ষা করার জন্য স্যাকরা নিয়ে গিয়েছিল।
অনুপমের মামা ছিলেন একজন হীন মানসিকতার লোক। তিনি ভেবেছিলেন কন্যার পিতা যে যৌতুক দেবেন, সেটি খাঁটি না-ও হতে পারে। তাই তাকে যাতে ঠকতে না হয় এ জন্য তিনি বিয়েবাড়িতে স্যাকরা নিয়ে গিয়েছিলেন।
উত্তর-গ
উদ্দীপকের বরের সঙ্গে অনুপমের ব্যক্তিত্বের ও সাহসিকতায় বৈসাদৃশ্য দেখা যায়।
পৃথিবীতে বিচিত্র ধরনের মানুষ আছে। মানুষে মানুষে ব্যক্তিত্ব ও আচার-আচরণে বিভিন্ন পার্থক্য দেখা যায়। অনুপমের ব্যক্তিত্বহীনতা ও সাহসিকতার অভাব তার জবানিতেই স্পষ্ট। বিয়েবাড়িতে স্যাকরা নিয়ে যাওয়া, গয়না পরীক্ষার বিষয়গুলো অনুপমের মামার হীনম্মন্যতারই পরিচায়ক।
‘অপরিচিতা’র অনুপম একজন ব্যক্তিত্বহীন ও পরনির্ভরশীল মানুষ। জীবনসঙ্গী নির্বাচন ও বিয়ের ক্ষেত্রে সে অন্যের ওপর পুরোপুরি নির্ভরশীল ছিল। তার চোখের সামনে কনে ও তার পিতার জন্য অপমানজনকভাবে গয়না পরীক্ষার কাজ করলেও অনুপম সেখানে বাধা দেয় না। বরং চরম ব্যক্তিত্বহীনতার ও সাহসিকতার অভাবের কারণে বিয়ে না করেই ফিরে আসতে হয় অনুপমকে। অপরদিকে উদ্দীপকের বর একজন প্রতিবাদী ও দৃঢ়চেতা মানুষ। নিজের পিতা রামসুন্দরের অমানবিক ও অসংগতিপূর্ণ কাজের প্রতিবাদ করতে সে দ্বিধা করেনি। তার সাহসিকতা ও দৃঢ়প্রতিজ্ঞার কারণে পিতার অন্যায় কাজটি না হওয়ায় সমাজে মানবিকতা প্রতিষ্ঠায় সহায়ক হয়েছে।
উত্তর-ঘ
‘উদ্দীপকের ঘটনাটি ‘অপরিচিতা’ গল্পে বর্ণিত সামাজিক অসংগতির দিকটি তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছে’—উক্তিটি যৌক্তিক।
যৌতুক বা পণপ্রথা সমাজের এক মারাত্মক ব্যাধি। যৌতুক প্রথার করালগ্রাসে নিষ্পেষিত হয়ে সহায়-সম্বল হারায় অনেক পরিবার। সমাজের শিক্ষিত ও সচেতন সব মানুষেরই এই সামাজিক সমস্যা রহিতকরণে এগিয়ে আসা উচিত।
উদ্দীপকের পিতা রায়বাহাদুরের অবস্থাটা এমন, যেন ছেলের বিয়ে নয়, যৌতুকটাই তাঁর বেশি প্রয়োজন। তিনি কন্যার পিতার অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করে যৌতুকের টাকা হাতে না পেয়ে বরকে বিয়ের পিঁড়িতে বসতে না দেওয়ার হুমকি দেন। ‘অপরিচিতা’ গল্পেও আমরা দেখতে পাই, অনুপমের মামা যৌতুকের গয়না পরীক্ষার জন্য স্যাকরা নিয়ে যান এবং স্যাকরার মাধ্যমে গয়নাগুলো খাঁটি কি না যাচাই করেন। উদ্দীপক ও ‘অপরিচিতা’ গল্পে সমাজের যৌতুক প্রথার এই অসংগতির চিত্র পাওয়া যায়। উদ্দীপক ও ‘অপরিচিতা’ গল্পে সমাজের যৌতুক প্রথার অসংগতির কথা বিশেষভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। ‘অপরিচিতা’ গল্পের সামাজিক সমস্যা উদ্দীপকের রায়বাহাদুরের মধ্যেও প্রতিফলিত।

Related Articles

School Ads
Business Study